স্মার্টফোনে ভাইরাস! জেনে নিন মুঠোয় থাকা সত্যটা

0
4
আমরা বাঙ্গালী

প্রায় সকলের হাতেই এখন স্মার্টফোন। আর স্মার্টফোন মানেই তাতে প্রয়োজনীয় সব অ্যাপস, ছবি ও ভিডিও। প্রায়ই শোনা যায়, মোবাইল ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

কিন্তু জানেন কী, মোবাইল ফোন ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা নেই। কারণ মোবাইল ফোনের ভাইরাসই হয় না! মোবাইলে ভাইরাস বলে এতদিন যা বলেছেন বা অন্যের কাছ থেকে শুনেছেন, মোবাইলের ক্ষেত্রে ‘ভাইরাস’ বলাটা কিন্তু ভুল! টেকনিক্যালি ভুল।

কম্পিউটার প্র‌যুক্তির ভাষায় ‘ভাইরাস’ হলো এমন একটি প্রোগ্রাম ‌যে অন্য প্রোগ্রামের সঙ্গে জুড়ে গিয়ে নিজেকে নিজেই কপি করে ফেলতে পারে। বদলে ফেলতে পারে ফাইলের ধরন। কম্পিউটারে কোন ফাইলটা কীভাবে চলবে সেটা ঠিক করে আরেক রকম ফাইল। এই ফাইলগুলোকেই আক্রমণ করে ভাইরাস। কখনো তাদের মুছে ফেলে, কখনো বদলে ফেলে ফাইলের ধরন। যেমন একটা .mp3 ফাইলকে ‌যদি .jpg ফাইলে বদলে ফেলা হয় তাহলে কী সেই ফাইল চালালে আর গান শোনা ‌যাবে? চুপচাপ বসে এই কাজটাই করে ভাইরাস। ভাইরাস হওয়ার প্রথম শর্ত হলো নিজেকে নিজে কপি করতে পারতে হবে। কিন্তু এই বিষয়টি ঘটে শুধুমাত্র উইন্ডোজে।

উইন্ডোজ ছাড়া অন্য যে কোনো ‌অপারেটিং সিস্টেম, যেমন- অ্যান্ড্রয়েড, ইউনিক্স (লিনাক্স), আইওএস, কোনোটারই ভাইরাস হয় না। ‌হওয়া সম্ভব নয়।

স্মার্টফোনে ভাইরাস

এবার নিশ্চয় প্রশ্ন করবেন, মোবাইলে তাহলে অনেকেই যে  ভাইরাস বলে, তা আসলে কী? সঠিক উত্তর হচ্ছে- ম্যালওয়ার। ম্যালওয়ার হলো এমন একটি প্রোগ্রাম ‌যা আপনার অজান্তে (অধিকাংশ সময় অন্য প্রোগ্রামের সঙ্গে) আপনার কম্পিউটার বা স্মার্টফোনে ইনস্টল হয়ে ‌যায়। এরপর আপনার ফোন থেকে নির্দিষ্ট ব্যক্তির কাছে তথ্য পাঠাতে থাকে সে। কিন্তু ম্যালঅয়্যার নিজেকে নিজে কপি করতে পারে না। আপনার অ্যান্ডরয়েড ফোন রুট করা না থাকলে আপনার ফাইল এডিট বা ডিলিটও করতে পারবে না সে।

পরিচিত পাবলিশারের সফটওয়্যারে ম্যালঅয়্যার থাকার সম্ভাবনা নেই। ম্যালঅয়্যার থাকে পর্নো সাইট বা লটারির প্রলোভন দিয়ে তৈরি সাইটগুলোতে। তাই ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে করতে ‌যদি হঠাৎ কোনো উইন্ডো পপ আপ করে, ‌যাতে ‘ইয়েস’ ও ‘নো’ দু’টি বটন রয়েছে, তাহলে ‘নো’তে ক্লিক করাই নিরাপদ। অথবা উইন্ডোটা ক্লোজ করে দিন।

Please follow and like us:
20

Comments

comments