কোব়িয়া বসে থাকবে না

0
18
পিয়ংইয়ং, ৯ মে (এএফপি): উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন দলের পার্টি কংগ্রেসে নেতা কিম জং-উনের পরমাণু অস্ত্র বৃদ্ধির নীতিকে সরকারিভাবে স্বীকৃতি দেওয়া হল। সেই সঙ্গেই দলের চেয়ারম্যানও নিযুক্ত হলেন উন। এই অবস্থায় সামরিক স্তরে আলোচনা ও পারস্পরিক সম্পর্কে উন্নতি আনার যে প্রস্তাব কিম দিয়েছিলেন, সোমবার দক্ষিণ কোরিয়ার তরফে তা খারিজ করে দেওয়া হল।
প্রায় ৪০ বছর পর গত শুক্রবার থেকে শুরু হয় এই পার্টি কংগ্রেস। কিমের রাজ্যাভিষেককে অনুমোদন দিতেই এই পার্টি কংগ্রেসের আয়োজন বলে মনে করা হচ্ছে। যাতে উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা হিসাবে কিমের মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হয়। এই পার্টি কংগ্রেসকে উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণকারী সংস্থা হিসাবে দেখা হয়। সেখানে গতকাল জড়ো হন কয়েক হাজার দলীয় প্রতিনিধি। সেখানে কিমের পেশ করা একটি রিপোর্ট গ্রহণ করা হয়। নয়া নীতিতে দেশের আর্থিক ক্ষমতার বৃদ্ধি ও একইসঙ্গে আত্মরক্ষার স্বার্থে পরমাণু শক্তির মান ও পরিমাণ বাড়ানোর কথা বলা হয়েছে। তবে তার সঙ্গেই বলা হয়েছে, যতক্ষণ না অন্য কোনও পরমাণু শক্তিধর রাষ্ট্রের দ্বারা দেশের সার্বভৌমত্ব বিপদের মুখে পড়ে, ততক্ষণ পরমাণু অস্ত্র ব্যবহার করবে না উত্তর কোরিয়া। যদিও দক্ষিণ কোরিয়া যদি যুদ্ধের দিকে হাঁটে, তাহলে যে উত্তর কোরিয়া হাত গুটিয়ে বসে থাকবে না, সেই কথাও বলা হয়েছে ওই রিপোর্টে। এই রিপোর্টটি প্রকাশিত হয়েছে উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদ সংস্থা কেসিএনএ-তে।
পার্টি কংগ্রেসে দীর্ঘ তিন ঘণ্টা বক্তব্য রাখার পর রিপোর্টটি পেশ করেন কিম। তিনি বলেন, শত্রু শিবিরের দেশগুলির সঙ্গে এখন ভালো সম্পর্ক চায় পিয়ংইয়ং। পাশাপাশি সীমান্তে উত্তেজনা কমাতে দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে সামরিক স্তরে আলোচনার প্রস্তাবও দেন তিনি। যদিও সিওলে দক্ষিণ কোরিয়ার তরফে কিমের ওই প্রস্তাব খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।
Please follow and like us:
20

Comments

comments