শেফের প্রবাসী জীবন

0
47

আজ যার কথা বলবো সেই ব্যক্তির জীবন বড় অদ্ভুত। অদ্ভুত কেন? পুরোটা পড়লে বুঝতে পারবেন।

ইমন নামের ছেলেটি বাবা মায়ের ৫ সন্তানের মধ্যে ২য়্। অস্থির প্রকৃতির মানুষটি অনেক ফাঁকিবাজি করে পড়াশুনা শেষ করে। যেখানে পরিবারের দায়িত্ব নেয়ার কথা সেখানেেই সে হুট করে বিয়ে করে ফেলে। বছর ঘুরতে না ঘুরতে ১ম সন্তান, তারপর ২য় এবং ৩য়।

ইমনের ৫ জনের পরিবারের দায়িত্ব পালন করতে থাকে তার বাবা মা। কতদিন?

সে কি তাঁর পরিবারকে এভাবে কষ্ট দিবে?

দিনা, ইমনের বউ ভীষণ বুদ্ধিমতী। স্বামীকে বুঝিয়ে লোক ধরে তাকে ইংল্যান্ডে যাওয়ার ব্যবস্থা করলো। ইমন গেল তবে উপায়টি সঠিক ছিল না। আটকে অাছে আজ্ও সিটিজেনশীপ পাওয়ার আশায়।

ইংল্যান্ডে ইমন রেস্টুরেন্টের কাজ করে।শেফের চাকরি খুবই এনজয় করছে। অনেক রান্না পারে।মাইনেও টা ভালো। দেশে বউ বাচ্চাদের ৫টি মৌলিক চাহিদা মেটানো সম্ভব হচ্ছে।

সবাই খুশি। শুধু বাবা মার একটাই দু:খ কেন সে তাদের কাছে টাকা  অালাদা করে পাঠায় না?

বাংলাদেশের শুশুর-শাশুরিদের একটাই সমস্যা- বউদের কেন জানি নিজের মেয়ে ভাবতে পারে না।

যারা আমার এ লেখা পড়বেন তাদেরতে শুধু এটুকুই বলতে চাই আপনার ছেলেটি বিদেশে আছে আপনাদেরকে ভাল রাখার জন্য। তাঁর সুস্থ থাকাটাই হবে আপনাদের কাম্য।

Please follow and like us:
20

Comments

comments