আল্লাহর রহমতের দেশ সৌদি আরব সম্পর্কে কিছু কথা জানুন

0
260
আল্লাহর রহমতের দেশ সৌদি আরব সম্পর্কে কিছু কথা জানুন
আল্লাহর রহমতের দেশ সৌদি আরব সম্পর্কে কিছু কথা জানুন
আল্লাহর রহমতের দেশ সৌদি আরব সম্পর্কে কিছু কথা জানুন

আল্লাহর রহমতের দেশ সৌদি আরব সম্পর্কে কিছু কথা জানুনঃ

প্রবাসী ভাইয়েরা সবাই কেমন আছেন আশা করি সবাই ভালো আছেন। আজকে আপনাদের সামনে সৌদি আরব সম্পর্কে কিছু তথ্য তুলে ধরব।

সরকারিভাবে সৌদি আরব সাম্রাজ্য নামে পরিচিত। আয়তনের দিক দিয়ে পশ্চিম এশিয়ার সবচেয়ে বড় আরব দেশ যার আয়তন ২১,৫০,০০০ বর্গ কিমি।  আলজেরিয়ার পরে আরব বিশ্বে দ্বিতীয় বৃহত্তম দেশ। এর উত্তরে জর্ডান ও ইরাক, উত্তর-পূর্বে কুয়েত ,পূর্বে কাতার, বাহরাইন এবং সংযুক্ত আরব আমিরাত অবস্থিত, দক্ষিন-পুর্বে ওমান ও দক্ষিনে ইয়েমেন অবস্থিত।

সৌদি আরবের জনসংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৭০ লক্ষ। এর মধ্যে নথিভুক্ত অভিবাসীর সংখ্যা ৮৮ লক্ষ আর অবৈধ অভিবাসী প্রায় ১৫ লক্ষ। সৌদি আরবের নিজস্ব জনসংখ্যা প্রায় ১ কোটি ৬০ লক্ষ। আরবি ভাষা  সৌদি আরবের সরকারি ভাষা। এখানকার ৮০%-এরও বেশি লোক আরবি ভাষায় কথা বলে। এছাড়াও সৌদি আরবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত অভিবাসী সম্প্রদায় আছে, যেগুলিতে বহু বিদেশী ভাষা প্রচলিত। এই সম্প্রদায়গুলিতে ফিলিপাইন দ্বীপপুঞ্জ, ভারতীয় উপমহাদেশ, ইরান, ইত্যাদি দেশের ভাষাগুলি প্রচলিত। আন্তর্জাতিক কর্মকাণ্ডে ইংরেজি  ভাষা ব্যবহার করা হয়।

দেশটি পুরোপুরি রাজতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পরিচালিত হয় এবং আইনের ক্ষেত্রে ইসলামি আইনের অনুসরণ করা হয়। ইসলামের দুই পবিত্র মসজিদ মসজিদুল হারাম ও মসজিদে নববীর কারণে এই দেশটাকে দুই পবিত্র মসজিদের দেশ বলা হয়। পৃথিবীর এক নাম্বার তেল উৎপাদনকারী ও রপ্তানিকারক দেশ এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম হাইড্রোকার্বন মজুদকারি।

শুধু তেলেই নয়, বেশ কিছু বিষয়ের কারণেই সৌদি আরব বিখ্যাত। আর এসব কারণে সৌদি আরবকে বলা হয় মধ্যপ্রাচের ‘পাওয়ার হাউজ’। আজকে আপনাদের জন্য থাকছে কিছু তথ্য:

পৃথিবীর এক নাম্বার তেল উৎপাদনকারী ও রপ্তানিকারক দেশ এবং পৃথিবীর দ্বিতীয় বৃহত্তম হাইড্রোকার্বন মজুদকারি। এই তেলের কারণে দেশটির অর্থনীতি যেমন বাড়ছে তেমনিভাবে এর মানব সম্পদ উন্নয়ন সূচকেও উপরের দিকে তাছাড়াও একমাত্র আরব দেশ হিসেবে জি-২০ প্রধান অর্থনৈতিক শক্তির সদস্য। দেশটি তার অর্থনীতিকে কর্পোরেশন কাউন্সিল ফর দ্য আরব স্টেটস অব দ্য গালফ (জিসিসি) এর মধ্যে ডাইভারছিফাইড করছে। পৃথিবীর চতুর্থ সামরিক খরচ দেশটি বহন করে। দেশটিকে মধ্যপ্রাচ্যের ক্ষমতাধর দেশ হিসেবে ধরা হয়।দেশটি জিসিসি, ওআইসি ও ওপেক এর সদস্য।

সৌদি আরব বাংলাদেশের তুলনায় ১৪.৫ গুণ বড়। কিন্তু বাংলাদেশের জনসংখ্যা তাদের ছয়গুণ বেশি। বাংলাদেশের জনসংখ্যা বর্তমানে প্রায় সাড়ে ১৬ কোটি হলেও সৌদি আরবের জনসংখ্যা প্রায় ২ কোটি ৮৭ লাখ ( ২০১০ আনুমানিক )। যার মধ্যে ২ কোটি সৌদিয়ান আর ৮৭+ লাখ বিদেশী।

হজ্জ ইসলাম ধর্মাবলম্বী অর্থাৎ মুসলমানদের জন্য একটিআবশ্যকীয় ইবাদত । এটি ইসলাম ধর্মের পঞ্চম স্তম্ভ। হজ্জ পালনের জন্য বর্তমান সৌদী আরবের মক্কা নগরী এবং সন্নিহিত মিনা, আরাফাত, মুযদালফা প্রভৃতি স্থানে গমন এবং অবস্থান আবশ্যক। সৌদি আরবে প্রতি বছর লাখ লাখ মুসল্লি  পবিত্র হজ্ব করতে আসে, যাদের অধিকাংশই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

বিশ্বের সর্বোচ্চ বিল্ডিং নির্মাণ করছে সৌদি আরব। ২০১৮ সালে কিংডম টাওয়ার নামে এ বিল্ডিংটি নির্মিত হলে তা প্রায় এক কিলোমিটার উঁচু হবে। যার নির্মাণে ব্যয় হবে ১.২৩ বিলিয়ন ডলার।

সৌদি আরবে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার জন্য জনসম্মুখে শিরশ্ছেদের প্রথা প্রচলিত রয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি এ কাজের জন্য উপযুক্ত ও আগ্রহী জল্লাদ পাওয়া যাচ্ছে না। তাই শিরশ্ছেদ বন্ধ করা হতে পারে দেশটিতে।

বিশ্বের একমাত্র দেশ হিসেবে সৌদি আরবে নারীদের গাড়িচালনা নিষেধ। এ দেশটিতে অবশ্য কোনো আইনে তা লেখা নেই। কিন্তু নারীদের ড্রাইভিং লাইসেন্স দেওয়া হয় না।

সৌদি আরবের বার্ষিক সামরিক খরচ আফগানিস্তানের মোট জিডিপির তিনগুণ। ২০১৩ সালে এর পরিমাণ ছিল ৬৭ বিলিয়ন। সামরিক খরচের দিক দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও রাশিয়ার পরে সৌদি আরবের অবস্থান।

জার্মানির তুলনায় ছয়গুণ বড় সৌদি আরব। তবে দেশটির অধিকাংশ স্থানই (৯৫%) মরুভূমি বা প্রায় মরুভূমি।দেশের সবচেয়ে বড় মরুভুমির নাম রাব-আল-খালি।ভূমির আকারের দিক দিয়ে বিশ্বের ১৩ তম দেশ সৌদি আরব। দেশটির মাত্র ১.৪৫ ভাগ ভূমি চাষযোগ্য। পশ্চিমাংশ উর্বর। সৌদি আরব পৃথিবীর একমাত্র দেশ যে দেশে কোন নদী নেই‌ তারপর ও আল্লাহর অশেষ রহমতের দেশ  সৌদি আরব।

 

Please follow and like us:
20

Comments

comments