প্রবাস যাতনা

0
31

প্রবাসে অনেকেই থাকেন যারা তাদের অবসর সময়ে অনেক গল্প কবিতা লিখে থাকেন। তেমনি একজন মুহাম্মদ সাখাওয়াৎ আলম চৌধুরী। উনি একজন কবি। আজকে তার একটি কবিতা প্রকাশ করা হোল।

প্রবাস যাতনা

  মুহাম্মদ সাখাওয়াৎ আলম চৌধুরী

কি পরম মমতায় ধরেছিলে হাত,
তোমার হাত ধরেই কাটিয়েছি কত রাত।
কত মায়া ছিল তোমার ঝিলিক দেয়া হাসির,
কত আবেগী ছিলে সেই তুমি?

কত কষ্টে তোমাকে করিয়াছিলাম রাজি,
তোমাকে কতটা ভালোবাসি এই আমি।
তুমি চেয়েছিলে দেখাতে কত যুক্তি,
তারপরও পেলেনা তুমি মুক্তি।
আমার পরম ভালবাসা দিয়েছি তোমাকে
সেই ভালবাসা তুমি গ্রহণ করেছ দু হাতে

সেই স্বপ্ন গড়ার স্বপ্নিল দিন গুলোতে,
তুমি ছিলে আমার হৃদয়ের বাহুডোরে।
সকাল সাঁঝেতে তুমি ছিলে কল্পনাতে,
কতকিছুই ছিল সেই স্বপ্নের আল্পনাতে।
সেই দিনগুলোতে তুমি হাওয়াই ভাসতে,
কখনো ভাবনি তুমি কি হবে বাস্তবতাতে

তোমার উড়ানো রঙিন পালে,
প্রেমতরী ভাসালাম গহিন জলে।
সময়ের স্রোতে জলের টানে,
জানতাম না এর শেষ কোনখানে।
তোমার প্রেমের বিশ্বাস ছিল,
মোর প্রতিটি নিঃশ্বাসের সাথে।
তুমি যে ভালবাসা দিয়েছিলে,
ভাবিনি তা পাব আমি কোন কালে।

হঠাৎ প্রকৃতির এক অমোঘ নিয়মে,
জীবন জীবিকার কঠিন কারণে,
আমাকে পাড়ি দিতে হলো কঠিন প্রবাসে
জীবন যেখানে নির্বিকার,
প্রতিটি নিঃশ্বাসে সেখানে হাহাকার,
প্রতিটি মুহূর্ত যেন অন্ধকার।

প্রতিটি হ্মন যেন এক একটি মহাকাল,
সেখানে সবাই ভালবাসার কাঙাল,
মন সেখানে উথাল পাথাল।
কঠিন কষ্টের বাস্তব জীবনে,
তোমাকে পড়ত মনে হ্মনে হ্মনে।
ভাবতাম কেন কষ্ট এই হ্মুদ্র জীবনে,
কেন জীবন চলে না হেসে খেলে।

রুদ্ধশ্বাস সেই বাস্তব সময়ে,
তোমাকে খুঁজতাম আনমনে।
বিধির কঠিন সত্য লিখনে,
হয়না যোগাযোগ তোমার সনে।
অবশেষে মরুউদ্যানে এলো জল,
মোর হৃদয়ে বহে বাতাস শীতল।
বহু কষ্টে করলাম কল,
সইতে হলো মোরে কত ধকল।

উত্তপ্ত মৃতিকার ন্যায় ফেটে চৌচির,
এই দেহের হৃদয়ে কঠিন ফাটল।
তোমার অল্প কথায় তুষ্ট হৃদয়,
মোর মনে হল যেন বিশ্ব জয়।
অস্থির আবেগে রুদ্ধ কন্ঠ,
হয়ে এল মোর শ্বাস বন্ধ।
তোমার রিনঝিন শীতল কন্ঠে,
হৃদয় ভূমিতে দিল জল ঢেলে।

হাজার কথার ঢালা সাজিয়ে,
হৃদয় হয়েছিল পরিপূর্ণ।
দিয়েছি তোমায় মোর প্রেমের শপথ,
করবোই তোমার জীবন আমি পূর্ণ।
তোমার আচারে সেদিন ছিল বাস্তবতা,
প্রতিটি কথায় ছিল পরিপূর্ণতা।
হঠাৎ তোমার কন্ঠে দেখি শীতলতা,
আমার মনে লাগে ভীষন খটকা।

কথা বলছি তোমার সাথে,
নিজের সমস্ত আবেগ ভালবাসা ঢেলে,
কিছুতেই মন হতে পারছে না তৃপ্ত,
কোথায় যেন কিছু কথা তোমার অব্যক্ত।
তোমার কথা গুলো কানে লাগছে বড় শক্ত,
মনে হলো তুমি যেন নেই আর আমার প্রতি আশক্ত।

ছাড়া ছাড়া কথায় তুমি পড়লে ধরা,
তোমার কাথায় পায়না আগের মায়া।
তোমার হৃদয়ে যেন নেই মোর ছায়া,
মনে হয় তুমি যেন নও আর একা।
পেয়েছ কি তুমি আর কারো দেখা?
গড়েছ কি নতুন সঙ্গ সাথে কোন সখা।

অকপটে করলে স্বীকার তুমি হে ললনা,
এতদিন করেছিলে আমার সাথে ছলনা।
ভুল ছিলতোমায় নিয়েআমার সব ধারণা আমায় নিয়ে করেছ তুমি শুধুই খেলনা।
আমায় তুমি দিচ্ছ আজ কত যে বাহানা,
আমি কি কখনোই তোমার মাঝে ছিলাম না

প্রবাস জীবনই কি আমার জন্য কাল?
আমি ছিলাম শুধু তোমার কাঙাল।
তোমার ভালবাসায় করলে আমায় নাকাল
কি অপরাধ ছিল বলনি এতকাল।
আজ কেন দূরে সড়ে গেলে বিছিয়ে মায়ার জাল।

এই কি তোমার ভালবাসা?
যা দিয়ে তুমি দিয়েছিলে মোরে আশা,
আজ তুমি পর হয়ে গেলে পেয়ে নতুন আশা।
এরই নামতো নয় ভালবাসা,
কেন আমার জীবনকে করলে তুমি হতাশা?

আজ আর তোমার কাছে কোন প্রশ্ন নেই,
আজ আমি নিজেই নিজেকে উত্তর দেয়, কেন আমি এলাম প্রবাসে জীবিকার অন্নেষণে?
কার জন্য বানাতে চেয়েছি সুখের সাম্রাজ্য?
কাকে নিয়ে দেখব আমি সুখের বর্ণীল স্বপ্ন?

যে তোমার জন্য আজ আমি প্রবাসী,
সেই তুমি হয়ে গেলে অন্য ঘরের দেবী।
যে তোমাকে নিয়ে গড়তে চেয়েছি ঘর,
সেই তুমি ভুলে গেলে হয়ে গেলে পর।
যে,তোমার জন্য কাঁদতো এই মন,
সেই তুমি হৃদয়ে দিলে অগ্নির দহন।

আজ প্রবাসী হয়ে মনে হয় কেন প্রবাস এমন,
জীবনের সুখের লাগিয়া যে জীবন পদার্পন,
সেই জীবনে কেন এমন অগ্নির দহন?
যে সুখের হাতছানিতে আসা এই প্রবাসে সেই সুখ পেয়েছি তৃপ্তি নেই হৃদয়ে।
বাহ্যিক সুখে কতইনা সুখী মানুষ,
অন্তরে অতৃপ্ত আত্মায় উড়ায় দুঃখের ফানুস।

 

Please follow and like us:
20

Comments

comments