রসনা তৃপ্তিতে থাকবে পুরনো ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার। সঙ্গে থাকবে পদ্মার ইলিশও।‌‌‌‌

0
15

ভয় নেই। বেড়াতে আসুন। ভারতে পর্যটকদের অভয় দিয়ে 44fcad52x88ebx4 একথাই বলছেন বাংলাদেশের প্রতিনিধিরা। প্রতি বছর ভারত, থেকে বহু পর্যটকই আসেন বাংলাদেশে। পদ্মার ইলিশ খাওয়ার সঙ্গে সমুদ্র থেকে জঙ্গল— দেখার অজস্র জায়গা এখানে। কক্সবাজার ও কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত, শিলাইদহে রবীন্দ্রনাথের বাড়ি, ঢাকায় মুজিবুর রহমানের বাড়ি, কুষ্টিয়ায় লালন আশ্রম, ঢাকার কালীবাড়ি আরও কত কী!‌‌ পর্যটন শিল্প থেকে রাজস্বও ভাল আসে আমাদেব় দেশের। কিন্তু সব কিছু হিসেব গোলমাল করে দিচ্ছে সাম্প্রতিক ঘটনাগুলি। কখনও বিদেশি খুন, কখনও জঙ্গি হামলায় চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে বাংলাদেশের পর্যটন সংস্থাগুলির। তবে অভয় দিচ্ছে সে দেশের সরকার। কলকাতার নেতাজি ইনডোর স্টেডিয়ামে শুরু হয়েছে পর্যটন মেলা। সেখানে হাজির বাংলাদেশের পর্যটন মন্ত্রকও। গিয়েছেন আমাদের পর্যটন সংস্থাগুলির প্রতিনিধিরা।stock-photo-dhaka-bangladesh-february-busy-traffic-at-the-central-part-of-the-city-in-dhaka-236736472 কলকাতা ছাড়াও আগরতলা, দিল্লি, মুম্বই থেকে বাংলাদেশ আসার ভিসা পাওয়া যায়। জানা গেছে, শুধু কলকাতা থেকেই রোজ গড়ে ৬০০/‌৭০০ ভিসা দেওয়া হয়। পুজো, একুশে ফেব্রুয়ারির সময় এই সংখ্যা আরও বেড়ে যায়। শনিবার ভারতের পর্যটন মেলায় উপস্থিত ছিলেন অসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন দপ্তরের যুগ্ম সচিব জ্যোতির্ময় বর্মন। তিনি জানালেন, পর্যটকদের জন্য বাংলাদেশ নিরাপদ নয়, এরকম ভাবার কোনও কারণ নেই। যে সব ঘটনা ঘটছে তা থামাতে সরকার দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। পর্যটন শিল্পে যাতে প্রভাব না পড়ে, পর্যটকদের কোনও অসুবিধা যাতে না হয়, তার জন্য বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ সরকার। ভারতীয় পর্যটকদের নিরাপত্তা নিয়ে কোনও সমস্যা হবে না। এ বাংলার মানুষের প্রচুর প্রশ্ন আছে বাংলাদেশের সাম্প্রতিক ঘটনা নিয়ে। কিন্তু তারপরও বহু মানুষই বাংলাদেশের গন্তব্যস্থল নিয়ে জানতে চাইছেন। বিষয়ভিত্তিক পর্যটনের কী ব্যবস্থা আছে তার খোঁজখবর নিচ্ছেন। বাঙালি পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে  পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ সরকার।  তিনি বলেন, ২০১৪ সালে পর্যটন খাতে বাংলাদেশ সরকার রাজস্ব বাবদ প্রায় ৩০ কোটি টাকা আয় করেছে। এর সঙ্গে যুক্ত রয়েছেন প্রায় ১৩ লক্ষ মানুষ। ২০২৫ সালে এই খাত থেকে আয়ের পরিমাণ ৫৬৬ বিলিয়নে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য রয়েছে। কলকাতার মানুষ এবার বেশি খোঁজখবর নিচ্ছেন কক্সবাজার, সেন্ট মার্টিন দ্বীপ, সুন্দরবন নিয়ে। ট্যুর অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (‌তোয়াব)‌–এর ‌ডিরেক্টর তৌফিক রহমান জানালেন, দুঃসময়ে পশ্চিমবঙ্গের পর্যটকদের পাশে চাই। তাহলেই বলা যাবে আমরা সংগঠিত, এক রয়েছি। এ ধরনের ঘটনার পরও প্রচুর ব্রিটিশ নাগরিক বাংলাদেশে বেড়াতে আসতে বুকিং করেছেনstock-photo-dhaka-bangladesh-march-view-of-the-busy-wholesale-market-at-the-bank-of-the-river-389191957। টি জি আই এশিয়ার কর্ণধার মোহিউদ্দিন হেলাল জানালেন,  বিশেষ পর্যটন প্যাকেজে শহিদ মিনার ছাড়াও দেখানো হবে ঢাকেশ্বরী মন্দির, লালবাগ কেল্লা–সহ ঢাকার বিশেষ দ্রষ্টব্য জায়গাগুলো। রসনা তৃপ্তিতে থাকবে পুরনো ঢাকার ঐতিহ্যবাহী খাবার। সঙ্গে থাকবে পদ্মার ইলিশও।‌‌‌‌

Please follow and like us:
20

Comments

comments