চা- চায়ের অপকারী এবং উপকারী কিছু দিক

0
80
আমাদের দৈনন্দিন জীবনে একটা সকাল বা একটা বিকাল চা ছাড়া ভাবা যায়?

চা- চায়ের অপকারী এবং উপকারী কিছু দিক

আমাদের দৈনন্দিন জীবনে একটা সকাল বা একটা বিকাল চা  ছাড়া ভাবা যায়? আমাদের জীবনে চা এক অপরিহার্য অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে। চা ছাড়া একটা  দিন আমরা কল্পনাও করতে পারি না।যেহেতু চা আমাদের প্রতিদিনের ব্যস্ত জীবনের নিত্তসঙ্গী, সেহেতু আমাদের শরীরের জন্য চা কতোটা উপকারি আর ক্ষতিকর তা জেনে রাখা ভালো। তাই আপনাদের জন্য চা পানের উপকারিতা এবং অপকারিতাঃ

উপকারিতাঃ-

গ্রিন টিঃ আমরা যারা ফিগার সচেতন তাদের জন্য গ্রিন টি অপরিহার্য ।একটি গবেষণায় দেখা গেছে দিনে দুবার গ্রিন টি পান করলে মানসিক ভাবে অনেক বেশী ভালো থাকবেন।নিয়মিত এই চা পান করলে ক্যানসার হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে। কিডনি ও ডায়াবেটিস রোগের জন্য উপকারি। রক্তে কোলেস্টোরেলের মাত্রা কমায় এবং রক্ত চলাচল ভালো হয়।

আদা চাঃ আদা চা আমাদের শরীরের জন্য খুবি উপকারি। বিশেষ করে জ্বর-ঠাণ্ডার জন্য এটি ভালো একটি ঔষধ। এসিডিটির বিরুদ্ধে ও আদা চা ভালো কাজ করে। আদা চা পান করলে হজমের সমস্যা কমে।

দুধ চাঃ

ক্লান্তিতে খুবি কার্যকর। দুধ চা সম্পর্কে আমাদের অনেকেরি ভুল ধারনা আছে লিভারের ক্ষতি করে, উজ্জ্বল ত্বক কালচে করে ফেলে এ ধারনা গুলো ভুল বরং এক কাপ চা আপনার সারাদিনের ক্লান্তি অনেকটাই দূর করে দিতে পারে।

অপকারিতাঃ

১।  খাবার আগে চা পান করলে হজমে বাধাগ্রস্ত হয়, খাবারের প্রয়োজনীয় পুষ্টি পাওয়া যায়না।

২। চা শরীরের ভিটামিন বি শোষণ রোধ করে বেরিবেরি রোগের সৃষ্টি করে।

৩। চা এর মধ্যে অ্যাসিডাম টেনিকামাস ও জেসথিয়েফিলনস নামক রয়েছে যা পাকস্থলীর হজম প্রক্রিয়া ব্যাহত করে।

সব কিছুরি ভালো এবং খারাপ দিক দুটোই আছে। অতিরিক্ত কোন কিছুই ভালো না। তাই চা আমরা নিয়ম করে পান করে অবশ্যই এটার ভালো দিক গুলো গ্রহন করবো।

 

Please follow and like us:
20

Comments

comments