ঘরেই সমুচা বানান একেবারে রেষ্টুরেন্ট ফাষ্ট-ফুডের দোকানের মত করে

0
224
ঘরেই সমুচা বানান একেবারে রেষ্টুরেন্ট ফাষ্ট-ফুডের দোকানের মত করে

আজ আপনাদের সামনে রান্নার একটি সহজ টিপস নিয়ে হাজির হয়ে গেলাম। বাসায় থাকতে হলে মাঝে মাঝেই রান্না ঘরে গিয়ে নিজেই রান্না বান্না করে একটু এক্সপেরিমেন্ট করার চেষ্টা করি! 😛

আজকে আমি আপনাদের কে শেখাবো খুব সহজেই কিভাবে ঘরে সমুচা বানাতে পারেন!

বিকেলটা গড়ালেই পেটে কেমন একটা টান পড়ে। এই গোধুলী বেলায় মুচমুচে গরম গরম সমুচা, সিঙ্গারা এসব পেটে না পুরলেই যেন নয়! সমুচাবানানোর সহজ রেসিপি জানা থাকলে রেস্টুরেন্টে গিয়ে কিনে খাওয়ার কি দরকার! আর বাইরের খাবার-দাবার থাকে ভেজালে ভরা, অসাস্থ্যকর। আর বাড়ির সবার স্বাস্থ্যের দিকেও নজর রাখতে হবে। খুব সহজে তৈরি করা যায় আর স্বাদের ভিন্নতা এবং পুষ্টিগুণ, সব মিলিয়ে সমুচা হতে পারে আপনার অবসরের বিকেলের নাশতায় এক চমৎকার এবং ঝটপট রেসিপি। তাই এবার না হয় ঘরেই তৈরি করে ফেলুন মজাদার ‘কিমা সমুচা। তাহলে চলুন জেনে নেই সমুচা বানানোর সহজ রেসিপি।

 

ঘরেই সমুচা বানান একেবারে রেষ্টুরেন্ট ফাষ্ট-ফুডের দোকানের মত করে

নিচের উপকরন গুলো ঝটপট ম্যানেজ করে ফেলুনঃ

  • ২ কাপ ময়দা
  • ১ কাপ কিমা (বিফ/চিকেন)
  • ১/২ কাপ পেঁয়াজকুচি
  • ১/২ চা–চামচ আদা–রসুন বাটা
  • ১ টেবিল চামচ কাঁচামরিচ কুচি
  • ১/৪ চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়ো
  • পরিমাণমতো তেল
  • পরিমাণমতো লবণ
  • প্রয়োজন অনুযায়ী পানি

এবার আসা যাক আসল কাজে। সব উপকরণ নেয়া হয়ে গিয়েছে তো? এবার শুরু করে দিন সমুচা বানানো।

নীচের প্রণালী দেখুনঃ

স্বাদমতো লবণ ও আদা–রসুন বাটা দিয়ে কিমা সেদ্ধ করে নিন। একটি প্যানে সামান্য তেল দিয়ে পেঁয়াজ সোনালি করে ভেজে নিন। তারপর কিমা দিয়ে দিন। এরপর লবণ, কাঁচামরিচ, গোলমরিচ গুঁড়ো দিয়ে, স্বাদ দেখে নামিয়ে নিন। এবার ময়দা মাখিয়ে নিন। ময়দা মাখানো হলে ছোট ছোট অংশে ভাগ করে করে রুটি বেলে নিন। রুটিগুলো লম্বা ফিতের মতো করে কেটে সমুচার ভাজ তৈরি করুন এবং ভেতরে পুর দিয়ে মুখ শক্ত করে আটকে দিন। সব সমুচা বানানো হয়ে গেলে প্যানে ভাজার জন্য তেল গরম করে অল্প আঁচে লালচে করে ভেজে ফেলুন। সমুচা ভাজা শেষে সস এর সাথে পরিবেষণ করুন।

ব্যস! কত সহজ ভাবেই না সমুচা বানানো যায়!

 

আমার পোষ্ট টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন। লাইক দিন!

সবাইকে ধন্যবাদ!

Please follow and like us:
20

Comments

comments